নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ৬ ইউপির চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র বাছাই

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

আসন্ন ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর,এনায়েতনগর, গোগনগর,কাশিপুর,আলীরটেক ও বক্তাবলি এই ৬টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান,মেম্বার ও সংরক্ষিত মেম্বার প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার(২১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসারের আয়োজনে ৬টি ইউনিয়নের বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে।


এসময় মনোনয়ন পত্র বাছাই কার্যক্রমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফা জহুরা,বিশেষ অতিথি নারায়ণগঞ্জ নির্বাচন কমিশনার মোঃমতিউর রহমান।এছাড়া সদর থানা ওসি(অপরাধ)সুজন, ব্যাংক কর্মকর্তা সহ কুতুবপুর, এনায়েতনগর ও কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদ রিটার্নিং অফিসার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আফরোজা খাতুন,কাশিপুর ইউপি রিটার্নিং অফিসার উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তারা প্রদীব চন্দ রায়,আলীরটেক ও বক্তাবলি ইউপি রিটার্নিং অফিসার উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.মোঃআতাউর রহমান ভূঁইয়ার উপস্থিতে ঘোষনা করা হয় চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্রের বৈধ্যতা ও অবৈধ।


মনোনয়ন বাছাইয়ে কুতুবপুর ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কায় মনিরুল আলম সেন্টু,ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা মার্কায় জাকির হোসেন,বাসদের এস এম কাদির ও স্বতন্ত্রের কাউছার আহমেদ,সাধারণ মেম্বার প্রার্থী আমির হোসেন সাগর,রহুল আমিন,মোঃগোলাম মোস্তফা,জাহাঙ্গীর আলম,নূরে আলম,আল মামুন,মোঃজামাল উদ্দিন সাঊদ,শাহ মোহাম্মদ আহসান সুইট,মোঃমানিক চাঁন,ডা.মোঃমাসুদ মিয়া,মোঃনজরুল ইসলাম,কে এম আফজাল হোসেন,রহুল আমিন,মোঃশরীফ মিয়া,মোঃনাসির প্রধান,মোঃজাহাঙ্গীর আলম,হিরুন,জামান মিয়া,শরীফ মিয়া,নজরুল ইসলাম,আলাউদ্দিন হাওলাদার,মোঃকামাল হোসেন,মোঃবাঁধন মিয়া,মোঃদ্বীন ইসলাম দিলু,মোঃরহুল আমিন,মোঃহুমায়ন কবির,মোঃখবির উদ্দীন,মোঃরোকন,এস এম আলম,মোঃরুবেল,মাহবুবুর রহমান বাচ্চু,মোঃইফতিয়ার আহমেদ,সাইদুর রহমান তুহিন,মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোঃওয়াসিম,গিয়াস উদ্দিন,মোঃআকরাম,হেলাল হোসেন প্রধান,আমজাদ হোসেন মোল্লা,বিএম কামরুজ্জামান আবুল , হান্নানুর রফিক রন্জু,জুয়েল আরমান,ইউনুস,সমর আলী সমর,ফরিদ উদ্দিন এবং সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী কহিনূর বেগম,আসমা বেগম,রাশিদা বেগম, বিউটি বেগম,রুমা মোল্লা,অনামিকা হক,রুবিনা আক্তার,আরজুদা বেগম খুকি,নাজমা বেগম,সুইটি আক্তার ও মাজেদা বেগমের মনোনয়ন পত্র বৈধ ও মেম্বার প্রার্থী মোঃআকরাম হোসেন রানা,মোঃওলিউল্লাহ, আলমগীরের মনোনয়ন পত্র অবৈধ হিসেবে ঘোষনা করা হয়।


এনায়েতনগর ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কায় মোঃআসাদুজ্জামান,সাধারণ মেম্বার মেম্বার প্রার্থী নাসির উদ্দিন প্রধান,মোঃওসমান,সালাউদ্দিন আহমেদ, আক্তার হোসেন,মো:সারজাহান,রাশেদুল ইসলাম মুন্না,মোঃবিল্লাল হোসেন,মনোয়ার হোসেন,আব্দুল জলিল,আওলাদ হোসেন, মোঃইব্রাহিম মিয়া,মোঃসজীব,মোঃজাহান গাজী,সাইদুর রহমান,কামাল হোসেন, মোঃনিসার উদ্দিন,কাজী হুমায়ন কবির,মোঃসারজাহান,মোঃজাহান প্রধান,মোঃআনোয়ার হোসেন,মোঃখলিলুর রহমান,আলম পারভেজ,আব্দুল বাতেন তালুকদার,মোঃইসলাম,ইউসুফ আলী,আমান উল্লাহ আমান,মোঃমজিবুর রহমান, মোঃমোশারফ হোসেন,মোঃরফিকুল ইসলাম,মোঃরহুল আমিন,মোঃজাকারিয়া জাকির,ভাসানী প্রধান, মোঃআসলাম মন্ডল,মনিরুল আলম,মোঃকামরুল হাসান,আক্তার উদ্দিন আফাজ ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী আসমা আহমেদ,মনোয়ারা বেগম,তাসলিমা বেগম,সখিনা বেগম,জেসমিন আক্তার রুমা,সাজেদা বেগম,রোজিনা আক্তার,ফারহানা আক্তারের মনোনয়ন পত্র বৈধ এবং মেম্বার প্রার্থী মোঃএকলাল হোসেন,জুয়েল জোহান,গোলাম সারোয়ার,আফরোজা আক্তার,সুরাইয়া বেগমের মনোনয়ন অবৈধ ঘোষনা করা হয়।


গোগনগর ইউপির বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকার মার্কায় চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিন আহমেদ,ইসলামি আন্দোলন বংলাদেশের হাতপাখা মার্কায় আবুল কাশেম,স্বতন্ত্রের নূর হোসেন সওদাগর, ফজর আলী,সাইদুর রহমান,সাধারণ মেম্বার প্রার্থী আব্দুল বেপারী,মোতালেব বেপারী,ইকবাল প্রধান, মোঃমোক্তার হোসেন সুকুম,মোঃআলী হোসেন,সাহিদ রহমান,মোঃইউসুফ, মোঃতোফাজ্জল হোসেন কাবিল,মোঃগিয়াস উদ্দিন,রিপন শেখ,মোঃসৈকত হোসেন, মোঃকামাল হোসেন,শহীদুল ইসলাম ফকির,রফিকুল ইসলাম,রাসেল সিকদার, হাবিবুর রহমান,মোঃবিপ্লব হোসেন,মোঃনাজমুল হাসান, আনোয়ার হোসেন,সৈয়দ হোসেন,মোঃ জাহাঙ্গীর আলম,মোঃখোরশেদ আলম, সম্রাট সরদার,রুবেল আহমেদ,মোঃমিলন হোসেন, আক্তার হোসাইন,মোঃমোস্তফা কামাল,মোঃআবুল কাশেম,আওলাদ হোসেন,আমির হোসেন,মোঃসোহেল সাজিদুর রহমান, মোঃসেলিম বাছেদ বেপারী,মোঃতোফাজ্জল হোসেন,সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার মোসা:লিপি আক্তার,রোকসানা শারমিন,নাজমা বেগম,ওম্মে কুলসুম,তাহমিনা বেবি,সুমাইয়া আক্তার,নিলুফা বেগম,মোসা:মিনু বেগম,পারভীন আক্তারের মনোনয়ন পত্র বৈধ এবং ব্যাংক ঋণ খেলাপি হওয়ায় মোঃআইয়ুব আলীর মনোনয়ন পত্র অবৈধ্য ঘোষনা করা করা হয়।


কাশিপুর ইউপির চেয়ারম্যান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কায় এম সাইফুল্লাহ বাদল,সাধারণ মেম্বার প্রার্থী আশরাফ উদ্দিন বাবুল মিয়া,লিমন সিকদার,মোঃজাকির হোসেন,মোঃআলামিন,এস এম ইমরান হোসেন,আলামিন,অশোক সরকার,বিল্লাল হোসেন খোকা, শামীম আহমেদ,মোঃবাদশা, সাইফুল ইসলাম রনি,মেজবাহ উদ্দিন পলাশ,মোঃহাবিবুর রহমান,রবিউল আলম, মোঃআমির হোসেন,মোঃইশান হায়দার,রফিকুল ইসলাম মাসুম,মোঃমিন্নত আলী, রাফসান জানি,দুলাল হোসেন,খোকন সরদার,মোঃখোরশেদ,নাজমুল জামান, মোঃতোফাজ্জল হোসেন,মোঃসুমন, মোঃকামাল হোসেন, মোঃশাখাওয়াত হোসেন,মোঃহাবিবুর রহমান লিটন, মোঃআমির আহমেদ,আবুল কাশেম, মোঃআইয়ুব আলী,সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার মেম্বার প্রার্থী শিল্পী আক্তার, রাবেয়া আক্তার রিমা,তাসলিমা আক্তার,মরিয়ম আক্তার,ফাতেমা বিবি,হেলেনা আক্তার,মুনিয়া আক্তার পলি,সুলতানা রাজিয়া,নাসিমা ইসলাম,আখি আক্তারের মনোনয়ন পত্র বৈধ এবং স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ব্যাংক হিসেব না দেওয়ায় রাশেদুল ইসলাম ,মোঃফারুক,সাধারণ মেম্বার প্রার্থী সাইফুর রহমান,ইব্রাহিম খলিল অবৈধ্য,লিটন সরদারের মনোনয়ন পত্র অবৈধ ঘোষনা করা হয়।


আলীরটেক ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কায় জাকির হোসেন,ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা মার্কায় হাফেজ ফিরোজ মিয়ার,স্বতন্ত্রের সায়েম আহমেদ,সাধারণ মেম্বার প্রার্থী মোঃজাকির হোসেন, বজলুর রহমান,শফিকুল ইসলাম,আব্দুস সোবহান,বাদশা মাদবর,আবুল কাশেম,গিয়াস উদ্দিন,সোহেল মিয়া, মোঃআলামিন,রওশন আলী, মোঃআব্দুল মান্নান,ওমর ফারুক, আব্দুল ওহাব,মোঃসৌরভ,আওলাদ হোসেন, মোঃমোক্তার হোসেন,নজরুল,শাহীন রাজুল,সাদ্দাম হোসেন,দিদার হোসেন,মোঃনাসির,কবির হোসেন,ওসমান গনি,মোঃসারজাহান সরকার,কালাই চাঁন,মোঃরানা আহমেদ,ফিরোজ মিয়া,সিরাজুল ইসলাম মনি,সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার ময়না বেগম,আকলিমা,আলেয়া আক্তার, কহিনূর, সোমা আক্তার,রওশন আরা,রুমা বেগম,আঞ্জুমান আরার মনোনয়ন পত্র বৈধ এবং চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ আমানউল্লা,মেম্বার প্রার্থী মোঃসাহাবুদ্দিন,মোঃখালেদের মনোনয়ন পত্র অবৈধ্য বলে বাতিল করা হয়।

বক্তাবলি ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কায় এম শওকত আলী,সাধারণ মেম্বার প্রার্থী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম,মনির হোসেন,হাসান আলী,আতাউর রহমান,মোঃমহিউদ্দিন, কাউসার আহমেদ,ওমর ফারুক,সালাউদ্দিন ,বাছেদ সরদার,জয়নাল আবেদীন,মীর আজিজুর রহমান,আক্তার হোসেন,মোঃআবু সাহিদ,মোঃরাসেল,শাহ মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন,মোঃদ্বীন ইসলাম,মোঃজামাল হোসেন,রহমান, মোঃআলমগীর,জলিল গাজী,মোঃমামুন মিয়া,মনির হোসেন,মোঃআতাউর রহমান, আবু তাহের,আমজাদ হোসেন,আলমগীর হোসেন,মোঃরশিদ আহমেদ, রমজান আলী,আকিল উদ্দিন,মোঃইয়াছিন,রাসেল মাল,তোয়ব আলী,পিয়ার আলী,সালাউদ্দিন,মোঃহোসেন আলামিন,আলী কাউসার,মোঃমোহসিন,বাবুল মিয়া, মোঃসেকান্দার আলী রানা,সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী এলিজা,পিংকি আক্তার,মোসা হাসনা বানু,মোসা হাজেরা বেগম,নুপুর আক্তার,মরিয়ম বেগম,সুলতানা আলমাস,মোসা রোজিনা, আম্বিয়া খাতুন,পেয়ারা বেগম,কুলসুমের মনোনয়ন পত্র বৈধ ও চেয়ারম্যান প্রার্থী জাতীয় পার্টির লাঙল মার্কায় আবুল হোসেন ২ লক্ষ টাকা ব্যাংক ঋণ খেলাপি হওয়ায়,এস এম ইলিয়াস, সাধারণ মেম্বার প্রার্থী ইফতেখারুজ্জামান শাহীন,মোঃজামাল হোসেন কৃষি ব্যাংকে ঋণ খেলাপি,মোঃবিল্লাল হোসেন মনোনয়ন পত্র অবৈধ্য হওয়ায় বাতিল করা।


উল্লেখ্য যে,আগামী ১১ নভেম্বর ২য় ধাপে অনুষ্ঠিত হবে নারায়ণগঞ্জ জেলার ৩ উপজেলার ১৬ ইউপি সহ সারাদেশে ৮৪৮ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। তফসিল অনুযায়ী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র ক্রয় শুরু হয়েছে ৩ অক্টোবর থেকে এবং জমা দেয়ার শেষ সময় ১৭ অক্টোবর,বাছাই হয়েছে ২১ অক্টোবর ,প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৬ অক্টোবর। ভোট হবে ১১ নভেম্বর সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।