নাসিম ওসমানের এক অকুতোভয় সেনা আলী হায়দার শামীম

  • সকাল নারায়ণগঞ্জ

 

 

সামাজিক কিংবা পারিবারিক বন্ধনে বেঁধে রাখে আশপাশের মানুষ গুলোকে।যার উপস্থিতি সবাইকে আনন্দে মাতিয়ে রাখে। সেই অতি সাধারন মানুষটি হলো প্রয়াত সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিম ওসমানের এক অকুতোভয় সেনা আলী হায়দার শামীম।

 

আলী হায়দার  শামীম রাজনীতি না করলেও অনেক রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাকে অন্যতম একজন অভিভাবক হিসেবেই মনে করেন। কেননা, ব্যক্তিগত জীবনে তিনি সবার সুখে-দু:খে এগিয়ে যান সব সময়। তার কাছে সব চেয়ে বড় বিষয়, ‘আমরা সবাই মানুষ।’ তাই কোন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী কিংবা ধনী-গরিব হিসেবে নয়, তিনি মানুষ হিসেবেই মানুষের পাশে দাঁড়ান।

 

আলী হায়দার শামীমের জন্মদিন উপলক্ষে ২৫ ডিসেম্বর প্রথম প্রহর থেকেই তার মোবাইলে ফোন করে, ফেসবুক, ওয়াটস আপ, ইমো ও ম্যাজেঞ্জারে শুভেচ্ছা বার্তা প্রেরণসহ স্বশরীরে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সর্বস্তরের মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো যেন আজ আলী হায়দার  শামীমের শুভাকাঙ্খীদের দখলে। এ যেন এক উৎসবের আমেজ।

 

এ বিষয়ে আলী হায়দার শামীম সকাল নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমার কাছে মনে হচ্ছে সত্যিই আমি ধন্য, আমি পূর্ন। মানুষ যে আমাকে এতটা ভালোবাসে তা আমার জানা ছিলোনা। সত্যিই তাদের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ হয়েছি। এদিনে তাদের কাছে আমার একটাই চাওয়া থাকবে, যেই নেতার জন্য আজ আমি শামীম হতে পেরেছি, সেই মহান নেতা নারায়গঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নাসিম ওসমান ভাইয়ের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় এবং তার সহধর্মী সর্বত্র জননী বলে খ্যাত পারভীন ওসমান ভাবি ও তার সুযোগ্য সন্তান আলহাজ্ব আজমেরী ওসমানের দীর্ঘায়ূ ও সুস্বাস্থ্য কামনায় আল্লাহ্’র দরবারে দোয়া করবেন। আল্লাহ্ যেন তাদেরকে ভালো রাখে। আসলে তারা ভালো থাকলেই আমি ভালো থাকবো, ভালো থাকবে নারায়ণগঞ্জের মানুষ। কেননা, নাসিম ওসমান পরিবার জনগণের কল্যানে কাজ করেন, মানুষকে ভালোবাসেন, মানুষের মঙ্গল চান এবং ভবিষ্যতে যতিদিন বেচে থাকবেন ততদিন ওসমান পরিবারের পাশে থাকতে চান।

 

এ ছাড়াও তিনি সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আমার জন্মদিনে প্রথমেই সকল প্রশংসা জ্ঞাপন করছি সেই মহান আল্লাহকে। যিনি আমাকে আপনাদের সকলের ভালোবাসায় সিক্ত ও প্রিয় হবার তৌফিক দিয়েছেন শুকরিয়া আলহামদুলিল্লাহ! আমার জন্মদিনে যারা আমার শুভ কামনা করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, তাদের সকলের প্রতি রইলো আমার কৃতজ্ঞা ও অনেক অনেক ভালোবাসা। আপনাদের এ ভালোবাসা আমার আগামী দিনে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।