টিকটকের মতো ক্ষতিকর অ্যাপস বন্ধে পর্যালোচনা চলছে: র‌্যাব ডিজি

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

দেশে কিশোর গ্যাংয়ের অস্তিত্ব থাকবে না উল্লেখ করে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, ‘যারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে অপরাধে জড়াচ্ছে, তালিকা তৈরি হচ্ছে।’ এ সময় অপরাধ করে কেউ পার পাবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
শনিবার (৫ জুন) রাজধানীর এফডিসিতে ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক।
ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি ‘কিশোর অপরাধ বৃদ্ধিতে সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার’ শীর্ষক এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।
চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে অপরাধ প্রবণতা বেড়েছে। টিকটকসহ কিছু অ্যাপস ব্যবহার করে অপরাধ বাড়ছে। ক্ষতিকর অ্যাপস বন্ধের বিষয়ে উচ্চপর্যায়ের কমিটি পর্যালোচনা করছে।
তিনি বলেন, অপরাধে জড়িত ব্যক্তিদের র‌্যাব গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনছে। অপরাধ সংঘটনের পর আসামি ধরা হয়নি, এমন নজির নেই র‌্যাবে। র‌্যাব হেডকোয়ার্টার্স ও ব্যাটালিয়নের মধ্যে কে আগে আসামি ধরবে তা নিয়ে প্রতিযোগিতা আছে। অপরাধ করে পার পাওয়ার সুযোগ নেই।
র‌্যাবের ডিজি বলেন, ‘চাপ নিয়ে কাজ করি না, চাপ আমার কাছে আসেও না। নানা ধরনের অপরাধ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কারণে অপরাধগুলো নিয়ন্ত্রণে আসে। এক সময় ইভটিজিং বেড়েছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় তা এখন নিয়ন্ত্রণে। জঙ্গিবাদও নিয়ন্ত্রণে।
র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, কিশোর অপরাধ নিয়ন্ত্রণে অভিভাবক ও শিক্ষকসহ সমাজের বিভিন্ন পেশার মানুষকেও কাজ করতে হবে। সন্তানদের প্রতি বাবা-মায়ের নজরদারী বাড়াতে হবে।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অপব্যবহার রোধে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। কিশোরদের সৃজনশীল কাজে সম্পৃক্ত করে কিশোর অপরাধ কমানো সম্ভব বলেও মনে করেন তিনি।
বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রাজধানীর শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজকে পরাজিত করে নরসিংদীর আবদুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ।
এতে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্র্যাসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। প্রতিযোগিতা শেষে দলগুলোর মধ্যে ট্রফি ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়।