শহরের মেট্রোহল,২নং রেল গেইট, টানবাজার,তল্লা রেল লাইন,চাষাড়া মহিলা কলেজের পিছনে চলছে প্রাকাশ্যে মাদক বিক্রি

  • সকাল নারায়ণগঞ্জ

 

 

দেশের অন্যান্য স্থানের মতো মাদকের মহামারীতে আক্রান্ত বন্দর নগরী নারায়ণগঞ্জ। ‘প্রাচ্যের ডান্ডি’ খ্যাত ঐতিহ্যবাহী শহর নারায়ণগঞ্জের এক সময় বেশ সুনাম থাকলেও বর্তমানে নানা সমস্যায় তা প্রায় হারাতে বসেছে।

 

বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ জেলার বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে মাদক। যার ভয়াল থাবা থেকে মুক্তি পাচ্ছে না কিশোর-যুবক থেকে শুরু করে বৃদ্ধরাও। এসব মাদকদ্রব্য খুব সহজেই মিলছে শহরের প্রায় সব অলি-গলিতে। এ অবস্থায় সন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়ছে সেখানকার অভিভাবকরা।

 

মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যেও নারায়ণগঞ্জ শহরের ২ নং রেল গেইট এলাকায় মাদকের জমজমাট ব্যবসা চলছে। দিনে-রাতে প্রকাশ্যে চলছে মাদকের বেচাকেনা। আবার মাদকাসক্তরা ভোরে কিংবা সন্ধ্যার পর মাদকের টাকা জোগাড় করতে ছিনতাই করছে। এ নিয়ে ২নং রেল গেইট এলাকার ব্যবসায়ীরা আতঙ্কিত। এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, মাদক নির্মুলের জন্য পুলিশ মোটেও আন্তরিক নয়। মাদকের গডফাদারদের না ধরে মাঝে মধ্যে মাদকসেবিদের আটক করে পুলিশ তাদের দায়িত্ব শেষ করে। অথচ মাদকের চিহ্নিত স্পটগুলোর দিকে পুলিশের নজর নেই।

 

২ নং রেল গেইট এলাকার মাদক ব্যবসায়ীরা হচ্ছে, ইমরান,দিপু,রুবেল এর ভাই নয়ন,অসত,ফর্মা উজ্জ্বল,শাহিন,ইমান,পুতুলি,দুলালি,বিল্লাল,তাছলি ও দুলালের মেয়ে অপর্না।

 

নারায়ণগঞ্জের খানপুর মেট্রোহল এলাকায় ট্রাফিক অফিসের সামনে বিকাল হতে গভীর রাত পর্যন্ত চায়ের দুকানের সামনে লেগুনা স্ট্যান্ড বানিয়ে চলছে মাদক ব্যবসা ও মাদক সেবন।

 

অন্যদিকে  মাদকের টাকা জোগার করতে ছিনতাই করে বেড়াচ্ছে এখানে থাকা মাদক সেবীরা।রাত বাড়লেই যখন সড়ক নিরব হয়ে যায় তখন মেট্রোহল দিয়ে কেও যাতায়াত করলেই ছিনতাইয়ের স্বীকার হচ্ছে এইসব মাদক সেবীদের কারনে।

 

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়া রেল লাইনের মহিলা কলেজের পিছনে বাগান বাড়ির সামনে মুদি দোকানের ব্যবসার আড়ালে চলছে মাদক ব্যবসা।

 

সম্প্রতি চাষাড়া রেল লাইন এলাকায় মাদক ব্যবসায়কে কেন্দ্র করে বেশ কিছু সংঘর্ষের ঘটনায় প্রান হানীর ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন থেকে এই সকল মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছেনা।

 

খানপুর তল্লা রেল লাইন এলাকায় সম্প্রতি মাদক সম্রাট হৃদয় ওরফে ইয়াকুবের শেল্টারে  অবাধে চলছে মাদক ব্যবসায়।

 

ইয়াকুবের বিক্রিত মাদকসেবীরা ছিনতাই ও চুরিতে সর্বস্বান্ত করছে শহরসহ এলাকাবাসীকে। সাম্প্রতিক সময়ে সর্বত্রই ফেনসিডিল, হেরােইন, গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্যের ব্যবসা অবাধে চলছে।

 

নারায়ণগঞ্জ শহরের টানবাজার গুদারাঘাট সংলগ্ন মেয়র আইভী কতৃর্ক সাধারন মানুষের হাটাচলা ও বসার জন্য স্থান নির্মান করা হলেও সেখানে এখন চলছে টানবাজার এলাকার মাদক সম্রাট নুর ইসলাম শিবার মাদক রাজ্যে।

 

অপরদিকে মন্ডলপাড়া পুল ও জিমখানা লেক পারের ঠিক পাশেই দিনভর দেখা মেলে মাদক ব্যবসায়ীদের।

 

নুর ইসলাম প্রকাশ শিবা পুরো টানবাজার এলাকার মাদক সম্রাট হিসেবে পরিচিত। ইয়াবা, গাজা,মদ, হেরোইন সহ এমন কোন মাদক নেই যা তার মাধ্যমে বিক্রি হয় না।পুলিশ তাকে গ্রেফতার করলেও জেল থেকে বের হয়ে আবার শুরু করেন তার মাদক ব্যবসা।

 

সুশীল সমাজের দাবি র‍্যাব,ডিবি,পুলিশ প্রশাসন যাতে অতিশীঘ্রই নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি এলাকা হতে মাদক ব্যবসায়ীদের শনাক্ত করে তাদের গ্রেফতার করে নারায়ণগঞ্জকে মাদকমুক্ত করেন।