অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কনস্টেবলের পেনশনের টাকা আত্মসাৎ, উদ্ধারে ব্যবস্থা নিল পুলিশ

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

একজন অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কনস্টেবল কুড়িগ্রাম জেলা থেকে বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইংকে লিখেছেন, “আপনাদের একটু যত্নের কারনে আমার টাকাটা ফিরে পাচ্ছি। বাংলাদেশ পুলিশকে ধন্যবাদ দিয়ে ছোটো করবো না। আমি এবং আমার স্ত্রী মনে প্রানে আপনাদের জন্য দোয়া করি। আপনারা সবসময় ভাল থাকবেন।”
উল্লিখিত পুলিশ সদস্য ২০১৭ খ্রি. অবসর গ্রহণ করেন। তিনি জানান, পেনশনসহ অবসরসূত্রে প্রাপ্ত তার যা কিছু সঞ্চয় প্রতারণামূলকভাবে এক ব্যক্তি আত্মসাৎ করেছে। এখন পরিবার নিয়ে তার পথে বসার উপক্রম হয়েছে। তিনি নানাজনের কাছে গিয়েছেন এবং নানাভাবে চেষ্টা করেছেন তার শেষ জীবনের সম্বল এই সঞ্চয়ের অর্থ ফিরে পেতে। আত্মসাৎকারী ব্যক্তি তার প্রভাব খাটিয়ে তাকে নানাভাবে হেনস্থা করেছেন এবং বারাবারি না করতে হুমকিও দিয়েছেন। এমন অবস্থায় তিনি বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইংকে বার্তা পাঠিয়ে সহযোগিতা চান। তবে, প্রক্রিয়াগত দীর্ঘসূত্রিতার কারনে তিনি এ বিষয়ে পারতপক্ষে কোনো আনুষ্ঠানিক মামলায় জড়াতে চান না বলে জানান।
মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং অভিযুক্তের এলাকা বগুড়ার শাহজাহানপুর থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুনকে বিষয়টি পাঠিয়ে নির্দেশনা দেয় অভিযোগটি সঠিক হলে এ বিষয়ে ভুক্তভোগী পুলিশ সদস্যকে উপযুক্ত আইনি সহায়তা দিতে। ওসি শাহজাহানপুর এ বিষয়ে অভিযুক্তের এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি, জনপ্রতিনিধি ও অভিযুক্তের অভিভাবকদেরকে সম্পৃক্ত করেন। এর ফলে, বিষয়টি শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান হয়েছে। অভিযোগকারী পুলিশ সদস্য ইতোমধ্যেই তার সঞ্চিত অর্থের একাংশ বুঝে পেয়েছেন। অবশিষ্ট অংশ শীঘ্রই পরিশোধ করা হবে বলে তাকে জানিয়েছে অভিযুক্ত ব্যক্তি।
উল্লেখ্য, টাকা-পয়সা, জমিজমাসহ দেওয়ানী বিষয়াদি আদালত কর্তৃক মীমাংসাযোগ্য। এক্ষেত্রে, পুলিশের করনীয় খুবই সীমিত। তবে, উল্লিখিত ঘটনায় সামাজিকভাবে বিষয়টির সমাধান হয়েছে। প্রে‌ক্ষিত ও প্রসঙ্গ বি‌বেচনায় পুলিশ এক্ষেত্রে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট পক্ষসমূহের দৃষ্টিতে এনেছে মাত্র।