অবশেষে দুই বন্ধুর মাঝে দ্বন্দের অবসান

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

সব সম্পর্কের মধ্যে সবচেয়ে স্বাধীণ ও নিবির সম্পর্ক হল বন্ধুত্বের। পারস্পরিক আস্থা ও ভীত তৈরী হয় বন্ধুত্বের মাধ্যমে। জীবনের পথ চলায় যখন আমরা ক্লান্ত হয়ে পড়ি তখনি বন্ধুত্বের বন্ধনই উজ্জিবিত করার একমাত্র মাধ্যম। তবে এ সম্পর্ক ছোটখাট ভুল বুঝাবুঝির মাধ্যমে ছন্দ পতন হতে পারে।
ঠিত তেমনি সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন ও সাধারন সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধান এই দুই বন্ধুর মধ্যেও ভুল বুঝাবুঝি সৃষ্টি হয়েছিল। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক,অনলাইন ও পত্র-পত্রিকায়ও দুই বন্ধুর মধ্যে ফাটলের ইঙ্গিত করে নিউজও প্রকাশিত হয়েছিল।
অবশেষে সৃষ্ট দ্বন্দের অবসান হল। সোমবার সন্ধ্যায় স্বল্পের চকস্থ নাসিক ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানের কার্যালয়ে বসেই মহানগর আ’লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবির মৃধার সমন্বয়ে দুই বন্ধুর মাঝে দ্বন্দের নিরসন হয়। পরে একে অপরকে মিষ্টি মূখ করিয়ে অভিমান ভেঙ্গে আলিঙ্গন করতে দেখা যায়।
এক প্রতিক্রিয়ায় জুয়েল হোসেন ও কাউন্সিলর দুলাল প্রধান বলেন,বন্ধুত্বের মধ্যে সামান্য বিষয় নিয়ে ভুল বুঝাবুঝি সৃষ্টি হয়েছিল। এখন সেই ভুল বুঝির অবসান হয়েছে। বন্ধু এমন একটা শব্দ যার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে অনেক আস্থা,ভালবাসা,আবেগ,অনুভূতি। বন্ধু সকলের জীবনেই অপরিহার্য্য একটা অঙ্গের মত। যার সঙ্গে ভেতরকার চাপানো কথাগুলো আপন মনে শেয়ার করা যায়।
রক্তের সম্পর্কের উর্ধ্বে গিয়ে আতœার যে সম্পর্ক তৈরী হয় এরই নাম বন্ধু। আমরা উভয়ে বাল্যকালের বন্ধু। নারায়ণগঞ্জের গন মানুষের নেতা একেএম শামীম ওসমানের নির্দেশনায় একসাথে রাজনীতি করছি। সকলের কাছে দোয়া চাই ভবিষ্যতে দুই বন্ধু মিলে মিশে মানুষের কল্যানে কাজ করার ধারাবাহিকতা যেন অব্যাহত রাখতে পারি।
এ সময় মহানগর আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবির মৃধা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি তানভির আহমেদ সোহেল,শেখ মানিক,যুগ্ম সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান কমল,জাকির, বাবু,রফিকসহ স্বেচ্ছাসেবকলীগ,যুবলীগ নেতৃবৃন্দ।