ওসমান পরিবারের পারিবারিক কবরস্থানে শ্মশানের মাটি দিয়ে উঁচু করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শামীম ওসমান

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক):

নারায়ণগঞ্জের ওসমান পরিবারের পারিবারিক কবরস্থানে শ্মশানের মাটি দিয়ে উঁচু করায় ক্ষোভ ও আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান। এ সময়ে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন।
এ সময়ে শামীম ওসমান বলেছেন, আমি গত ২৭ জুলাই চুনকা চাচার স্ত্রীর কবর জিয়ারতে এসে দেখলাম আমাদের পারিবারিক কবরস্থানের পাশে মাটি ছিলো কিন্তু কবরের উপরে না। কেনো জানি আজ আসতে মনে চাইলো, এসে দেখি আমার পরিবারের মৃত সদস্যদের কবরের উপরে শ্মশানের পোড়া মাটি দিয়ে ভরাট করে উচু করা হয়েছে। একজন মুসলমান কখনো চাইবে না শ্মশানের মাটি কবরস্থানে দেয়া হোক, তেমনি একজন হিন্দুও কখনো চাইবে না তার শ্মশানে করবস্থানে মাটি হোক।
শামীম ওসমান আরও বলেন, আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে। এটা মানুষের কাজ হতে পারে না। ইবলিশ শয়তান মানুষকে দিয়ে এই কাজ করিয়েছে। শুধু আমাদের পারিবারিক কবরস্থানের জায়গায় না, পাশের অনেক কবরেও তারা এমনভাবে মাটি ফেলেছে যে সেখানে কবর ছিলো নাকি তা কেউ বলতে পারবে না।
তিনি আরও বলেন, আমরা যে জায়গাগুলোতে বসে জিয়ারত করতাম সে জায়গাগুলোতেও শ্মশাসের পোড়া মাটি দিয়ে এমনভাবে ভরাট করে উচু করা হয়েছে যে সেখানে বসার সুযোগ নেই। যে ঠিকাদার কাজ করতে গিয়ে এমন নেক্কারজনক কাজ করেছেন, দ্রুত আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনেন। আমার ধৈর্যের পরিক্ষা নিবেন না।
তবে এই বিষয়টি অনিচ্ছাকৃতভাবে হয়েছে বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের শ্মশানের বাউন্ডারী দেয়াল ও ঘাট নির্মাণ কাজের ঠিকাদার মামুন।
তিনি জানান, শ্মাশানে একটি ঘাট নির্মান করা হবে। ঘাটের বেজের কাজ করার জন্য মাটি উত্তোলন করে কবরস্থানের পাশে রাখা হয়েছে। বৃস্টিতে মাটি গড়িয়ে গেছে। এটা অনিচ্ছাকৃতভাবে হয়েছে। আমি এগুলা সরিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করবো।