হাসিনা অটিজম চাইল্ড কেয়ারের অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধা মন্ত্রী – সরকার প্রতিবন্ধীদের পাশে থাকবে।

সকাল নারায়ণগঞ্জ:

অদ্য ১৮ ই ফেব্রুয়ারী, ২০২১  হাসিনা অটিজম চাইল্ড কেয়ারের উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের আনন্দ সমাবেশ  ও  “স্বাধীন বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের অধিকার সংরক্ষণে রাস্ট্র ও নাগরিকদের দায়িত্ব “- শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। 

অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মাননীয় মন্ত্রী  জনাব আ ক ম মোজাম্মেল হক। 

বাবু রিপন ভাওয়ালের সঞ্চালনায় হাসিনা অটিজম চাইল্ড কেয়ারের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষা হাসিনা রহমান সিমুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আনন্দধামের অতিরিক্ত চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী, মুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন সোসাইটি ও মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার সম্মানিত চেয়ারম্যান এডভোকেট আবু তৌহিদ ভূইয়া প্রিন্স। 

জাতির জনকের জন্মশতবর্ষের আনন্দে প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের আনন্দ সমাবেশে দুপুর হতেই প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের ছুটাছুটিতে আনন্দ হিল্লোলে মেতে উঠে বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তন। দুপুরের লাঞ্চ, অপরাহ্নের আপ্যায়ন, নাচ, গান, কেক কাটা ও চিত্রকলা প্রদর্শনীতে মুখরিত ছিল এই অনন্যসাধারণ আনন্দমেলা। মাননীয় মন্ত্রী ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের আগমন এই আনন্দ সমাবেশে ভিন্ন মাত্রা যুক্ত হয়।
বিকেলে অলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতেই মাননীয় মন্ত্রী প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রদর্শনী ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন করেন। পরবর্তীতে জাতির জনকের জন্মশতবর্ষের আনন্দে প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের সংগীতের তালেতালে নৃত্য উপস্থিত সুধীবৃন্দকে মন্ত্রমুগ্ধ করে।

মাননীয় মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক তার  বক্তব্যে হাসিনা অটিজমের প্রতিষ্ঠাতা হাসিনা রহমান সিমুর ভূষয়ি প্রশংসা করে বলেন উনি প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোদের যেভাবে মাতৃস্নেহে আগলে রেখেছেন তা সমাজের জন্যে অনুকরণীয় হয়ে রইলো। 
প্রতিবন্ধী সেবায় সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ্য করে মাননীয় মন্ত্রী বলেন প্রধানমন্ত্রী তনয়া সায়মা ওয়াজেদ পুতুল বিশ্ব দরবারে প্রতিবন্ধীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় তার বিরামহীন প্রচেষ্টার কারনে আজ তিনি প্রতিবন্ধী সেবায় বিশ্ব মানবতার মুর্তপ্রতিক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন।
 মন্ত্রী বলেন বর্তমান সরকার প্রতিবন্ধীদের সমস্ত নাগরিক অধিকার সুনিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে ও সেই সাথে উনি নাগরিকদের প্রতিবন্ধী সেবায় এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে বলেন আপনাদের সম্পৃক্ততা ও প্রতিবন্ধীদের প্রতি সহমর্মিতাই প্রতিবন্ধীদের অধিকার সুনিশ্চিত করতে সহায়ক হবে। তিনি বলেন সরকার প্রতিবন্ধীদের পাশে থাকবে। 

অনুষ্ঠানে  মুখ্য আলোচক আনন্দধামের অতিরিক্ত চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র  এডভোকেট আবু তৌহিদ ভূইয়া প্রিন্স তার বক্তব্যে হাসিনা অটিজম চাইল্ড কেয়ারকে প্রতিবন্ধী সেবায় বিশ্ব দরবারে একটি অনুকরণীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে সকলের সহযোগিতা চান ও সেই সাথে  তিনি বলেন এই প্রতিষ্ঠানকে রাস্ট্র ও সরকার কর্তৃক প্রদত্ত কোন অধিকার ও সহযোগিতা প্রদানে সংশ্লিষ্ট কেহর বৈষম্য ও শৈথিল্য বরদাস্ত করা হবেনা।

বাবু রিপন ভাওয়াল বলেন  আমরা দেশের যুবসমাজ  প্রতিবন্ধীদের অধিকার সংরক্ষনে সচেতন ও হাসিনা অটিজম চাইল্ড কেয়ারকে এগিয়ে নিতে আমাদের প্রচেষ্টা সবসময় সম্পৃক্ত থাকবে।

হাসিনা রহমান সিমু তার বক্তব্যে মাননীয় মন্ত্রী সহ উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন আজকে আপনারা আপনাদের মুল্যবান সময় ব্যয় করে যে সময় আমাদেরকে দিলেন প্রতিবন্ধীর মা হিসেবে আমি অভিভূত ও আজ আমার মত প্রত্যেক মায়ের অনুভূতি হচ্ছে আমরা অসহায় নই,  আমাদের সাথে আমাদের দেশ, সরকার ও দেশবাসী আছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন  বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব আবদুল মান্নান মেম্বার, আনন্দধামের ভাইস চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মুক্তি, মহাসচিব আজিজুল ইসলাম বাবু, যুগ্ম মহাসচিব বাবু শ্যামল দত্ত, মোঃ শহিদুল্লাহ, এডভোকেট শেখ জসীম, মাকসুদ হিটু, মোক্তার হোসেন, খোকন গাজী, শ্যামল দত্ত,  বিশ্বজিৎ সাহা, হরি শীল, নারায়ণ চন্দ্র, রতন পোদ্দার , মোঃ অভি প্রমুখ।