৯৯৯ এ ফোনকলে অপহৃত আইনজীবী উদ্ধার, আটক ৩

সকাল নারায়ণগঞ্জ:

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ নম্বরে  কলের ভিত্তিতে অপহরণের শিকার এক আইনজীবীকে উদ্ধার এবং অপহরণ, নির্যাতন, হত্যার হুমকি ও মুক্তিপণ দাবীর অভিযোগে এক নারী সহ ৩ জনকে আটক করেছে যশোর পিবিআই ও যশোরের অভয়নগর থানা পুলিশ।


গত রোববার (৭ ফেব্রুয়ারী) রাত ১১ টায় যশোরের ঝিকরগাছা থেকে এক কলার ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জানান তার বোনের ছেলেকে একদল দুষ্কৃতিকারী খুলনা থেকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে ত্রিশ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করছে। 


৯৯৯ বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে যশোর জেলা পুলিশের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ ও ঝিকরগাছা থানায় জানায়। ইতিমধ্যে সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারী) ভিকটিমের পরিবার বিষয়টি যশোর পিবিআইকেও জানায়। উক্ত অভিযোগদ্বয়ের প্রেক্ষিতে ঝিকরগাছা থানা পুলিশ ও যশোর পিবিআই ভিকটিমকে উদ্ধার করতে দ্রুত যৌথভাবে কাজ শুরু করে।

বিভিন্ন পুলিশি কৌশল অবলম্বনের মাধ্যমে এক পর্যায়ে ভিকটিমের অবস্থান নির্নয় করতে সক্ষম হয় পুলিশ।  অবশেষে মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারী) পিবিআই ও অভয়নগর থানা পুলিশ ভিক্টিমকে উদ্ধার করার পাশাপাশি ৩ জনকে আটক করতে সমর্থ হয়।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, হাই কোর্টের একজন নবীন আইনজীবীর সাথে খুলনার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। গত ৬ ফেব্রুয়ারী উক্ত আইনজীবী সাতক্ষিরার নিজ গ্রামের বাড়ি হতে খুলনা শহরে এসে দুপুর আনুমানিক আড়াই টার সময় পাইওনিয়ার কলেজের সামনে দেখা করেন প্রেমিকার সাথে। 


পরে তারা উভয়ে গিলাতলা খুলনা ক্যান্টনমেন্ট পার্কে বেড়াতে আসেন। পার্কে বেড়ানোর সময় উক্ত আইনজীবীর প্রেমিকার বান্ধবী আসামী সুরাইয়া (২০) তার বাসায় চায়ের দাওয়াত দিয়ে ভিকটিম (আইনজীবী) ও ভিকটিমের প্রেমিকাকে নওয়াপাড়া তার বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গিয়ে সুকৌশলে উক্ত আইনজীবীকে আটকিয়ে রেখে তার পরিবারের নিকট ৩০,০০০০০/-(ত্রিশ লক্ষ) টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

 
ভিকটিমের পরিবার রোববার (৭ ফেব্রুয়ারী) ৯৯৯ এ এবং ৮ ফেব্রুয়ারী তারিখে যশোর পিবিআইকে অভিযোগ জানায়। উক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে যশোর অভয়নগর থানা পুলিশ ও পিবিআই  অপরাধীদের অবস্থান সনাক্ত করত: খুলনা ও অভয়নগরে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে। অবশেষে অভয়নগর থানার তালতলা একতারপুর থেকে মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১১ টায়  ভিকটিমকে উদ্ধার করে এবং ঘটনার সাথে জড়িত আসামী- সুরাইয়া (২০), মোঃ আঃ সালাম (২৪), ও মোঃ শাহিল শিকদার (১৮) কে গ্রেপ্তার করে।


ঘটনার সাথে জড়িত পলাতক অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। উল্লেখ্য যে আসামী সুরাইয়া একটি স্বনামধন্য টিভি চ্যানেলে অপরাধ বিষয়ক  একটি অনুষ্ঠানে বিভিন্ন চরিত্রের অভিনয় করে থাকে।