কোয়ারেন্টিনের নিয়ম ভেঙে বিপদে উইন্ডিজ

সকাল নারায়ণগঞ্জ অনলাইন ডেস্কঃ

মহামারী করোনাভাইরাসের এ সংকটময় মুহূর্তে কোয়ারেন্টিনের নিয়ম ভেঙে বিপাকে পড়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। 

করোনাকালে জৈব সুরক্ষাবলয় তৈরি করে ক্রিকেট আয়োজন বেশ ব্যয়বহুল। খেলা মাঠে রাখতে এর বিকল্পও নেই। কিন্তু যাদের সুরক্ষা দিতে এত কিছু সেই ক্রিকেটাররা কতটা সচেতন? নিউজিল্যান্ডে কোভিড-১৯ কোয়ারেন্টিন প্রটোকল ভেঙে প্রশ্নটা তুলে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। 

তিনটি টি-টোয়েন্টি ও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজি খেলতে নিউজিল্যান্ড সফরে এই মুহূর্তে ক্রাইস্টচার্চের একটি হোটেলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে আছে উইন্ডিজ দল। 

বিশেষ বিবেচনায় অনুশীলনের সুযোগ করে দেয়া হয়েছিল তাদের। কিন্তু টিম হোটেলে দলের কয়েকজন সদস্য বারবার কোয়ারেন্টিনের নিয়ম ভাঙায় বুধবার ক্যারিবীয়দের অনুশীলনের সুযোগ বাতিল করেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ। এতে সিরিজই পড়ে গেছে হুমকির মুখে। 

হোটেলে ভিন্ন দুটি সুরক্ষাবলয়ে রাখা হয়েছিল উইন্ডিজের ক্রিকেটারদের। কিন্তু নিয়ম লঙ্ঘন করে দলের অনেকেই হোটেলের নির্ধারিত অংশের বাইরে একসঙ্গে বসে আড্ডা দিয়েছেন। দুই বলয়ের মধ্যে খাবার বিনিময় করেছেন, যা ধরা পড়েছে সিসিটিভির ক্যামেরায়। হোটেলের স্টাফরাও এ নিয়ে রিপোর্ট করেছেন। নিয়ম ভাঙার সব প্রমাণ হাতে পাওয়ার পর উইন্ডিজ দলের অনুশলীন সুবিধা বাতিল করে দুই বোর্ডকে বিষয়টি জানিয়েছে স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ। 

এখন খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে কিনা তা ঠিক করবে দুই বোর্ড। ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ এরই মধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ক্রিকেটারদের এমন আচরণে হতাশ ও বিব্রত বোর্ড প্রধান জনি গ্রেভ। তারা নিজেদের ছোট করেছে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটকে ছোট করেছে। সম্ভবত সফরকে এবং নিউজিল্যান্ডের জনগণকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে। আমি হতাশ ও বিব্রত।

শুক্রবার শেষ হওয়ার কথা উইন্ডিজ দলের কোয়ারেন্টিন পর্ব। এখন করোনা পরীক্ষায় সবাই উতরে গেলে সফর বাতিলের ঝুঁকি কেটে যাবে। তখন কুইন্সটাউনে যাবে তারা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে। ২৭ নভেম্বর অকল্যান্ডে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।