1. [email protected] : সকাল নারায়ণগঞ্জ : সকাল নারায়ণগঞ্জ
  2. [email protected] : skriaz30 :
  3. : wpcron20dc4723 :
জননেতা একেএম শামসুজ্জোহার ৩৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী-আগামীকাল ২০ শে ফেব্রুয়ারি - সকাল নারায়ণগঞ্জ
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১০:৩৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট
রূপগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় প্রসুতির মৃত্যু রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা রূপগঞ্জের তিন চাকার পরিবহনের চালকদের মধ্যে নগদ অর্থ বিতরণ রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানিতে মরে গেলো ৩ লাখ টাকার মাছ অসুস্থ অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা  রূপগঞ্জে ভূমিসেবা সপ্তাহ উপলক্ষে সভা/ র‍্যালী অনুষ্ঠিত  সোনারগাঁয়ে মেঘনা গ্রুপের চুরি হওয়া মালামালা উদ্ধার গ্রেপ্তার-১ কাজী নজরুল ইসলাম এর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে আলোচনা ও শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান মরুকরণ এবং ক্ষরা প্রতিরোধে  সবুজ পৃথিবী গড়ে তোলাই পরিবেশ দিবসে আমাদের অঙ্গীকার – হাসিনা রহমান সিমু  ২য় বিভাগ ক্রিকেট লীগমহসিন ক্লাব হারালো পাইকপাড়াকে গাজীপুরে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট স্থানীয়করণ বিষয়ক কর্মশালা  অনুষ্ঠিত

জননেতা একেএম শামসুজ্জোহার ৩৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী-আগামীকাল ২০ শে ফেব্রুয়ারি

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ
  • আপডেট বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৪৫ Time View
জননেতা একেএম শামসুজ্জোহার ৩৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী-আগামীকাল ২০ শে ফেব্রুয়ারি
জননেতা একেএম শামসুজ্জোহার ৩৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী-আগামীকাল ২০ শে ফেব্রুয়ারি

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

আগামীকাল (২০ শে ফেব্রুয়ারি) বৃহস্পতিবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর, মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম সংগঠক, ভাষা সৈনিক ও স্বাধীনতা পদকে (মরোণত্তর) ভূষিত প্রয়াত জননেতা একেএম শামসুজ্জোহার ৩৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৮৭ সালের এই দিনে বর্ষীয়ান এই জননেতা ইন্তেকাল করেন।

দিনটি উপলক্ষে মরহুমের পরিবার, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে  দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি গ্রহন করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে পবিত্র কোরআনখানি, সকালে মরহুমের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, দলীয় কার্যালয়ে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল।  বাদ আসর উত্তর চাষাড়ায় হিরা মহলে পরিবারের পক্ষ থেকে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। বাদ মাগরীব ২নং রেল গেইটস্থ আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক ও সাস্কৃতিক সংগঠন দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন  কর্মসূচি পালন করবে। 

প্রয়াত এ কে এম সামসুজ্জোহা ছিলেন  আওয়ামীলীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, গণ পরিষদের সদস্য ও স্বাধীনতা পরবর্তী জাতীয় সংসদ সদস্য। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতের শরনার্থী শিবিরে তিনি “ত্রানবন্ধু” নামে পরিচিত ছিলেন। প্রয়াত এ জননেতা সর্বপ্রথম ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর হাইকোর্টে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন এবং বাংলাদেশ বেতারের মাধ্যমে বিজয়ের বার্তা প্রচার করে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে শান্ত থাকার আহবান জানান। ঐ দিন অপরাহ্নে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা, বঙ্গবন্ধু কন্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ পাক সেনাদের হাতে আটক বঙ্গবন্ধু পরিবারকে মুক্ত করতে গিয়ে পাক সেনা কর্তৃক গুলিবিদ্ধ হন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জের একটি সুধী সমাবেশে সেই ঘটনাটি নিজ মুখে বর্ননা করেছিলেন।

প্রয়াত শামসুজ্জোহার সহধর্মীনি ও রত্নগর্ভা নাগিনা জোহাও ছিলেন ভাষা সৈনিক। তাঁর বড় ছেলে প্রয়াত জননেতা ও সাবেক এমপি নাসিম ওসমান বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিশোধ নিতে ১৯৭৫ এর ১৫আগষ্ট নবপরিনীতা বধুকে রেখেই প্রতিরোধ যুদ্ধে যোগ দিয়েছিলেন। এরপর সামসুজ্জোহাকে গ্রেফতার করা হয় এবং ১৯৭৫সালের ৩ নভেম্বর জাতীয় ৪ নেতার হত্যাযজ্ঞের সময় তিনি ও শহীদ জাতীয় নেতা ক্যাপ্টেন মনসুর আলী একই সেলে বন্দি ছিলেন। সামসুজ্জোহা ছিলেন ঐ কলঙ্কিত ইতিহাসের অন্যতম স্বাক্ষী। প্রয়াত সামসুজ্জোহার মেঝ ছেলে বিকেএমইএ’র সভাপতি একেএম সেলিম ওসমান এমপি ও ছোট ছেলে একেএম শামীম ওসমান এমপি তৃতীয়বার জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।  মহান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় প্রয়াত সামসুজ্জোহাকে ২০১২ সালে স্বাধীনতা পদক (মরণোত্তর) এ ভুষিত করা হয়।

আরও সংবাদ
© ২০২৩ | সকল স্বত্ব সকাল নারায়ণগঞ্জ কর্তৃক সংরক্ষিত
DEVELOPED BY RIAZUL