1. [email protected] : সকাল নারায়ণগঞ্জ : সকাল নারায়ণগঞ্জ
  2. [email protected] : skriaz30 :
  3. : wpcron20dc4723 :
রূপগঞ্জে মহাসড়ক দখল করে হাটবাজার প্রতি মাসে ৭৫ লাখ টাকা যায় কোথায় - সকাল নারায়ণগঞ্জ
সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট
বাবার জন্য নারায়ণগঞ্জ এর মানুষের কাছে দোয়া চাইলেন অয়ন ওসমান ছাত্রলীগ সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে আছে অয়ন ওসমান এরশাদের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মুন্সিগঞ্জ জেলা জাপা’র মিলাদ , দোয়া ও খাবার বিতরন  রূপগঞ্জে পুলিশের অভিযানে ৬ অপহরণকারী আটক  জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ঠিকাদারদের সাথে লিরা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ”র মতবিনিময় সভা-সম্পন্ন  ফ‌টো সাংবা‌দিক ‌মোক্তা‌র হোসেনের মাতার ইন্তেকা‌লে আজ‌মেরী ওসমা‌নের গভীর শোক না’গঞ্জ জেলা ও মহানগর ঐক‌্য প‌রিষ‌দের কর্মী স‌ম্মেলন অনু‌ষ্ঠিত পূর্বাচলে শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ রূপগঞ্জে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের বিশেষ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধে শরণার্থী শিবিরে ভারতের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

রূপগঞ্জে মহাসড়ক দখল করে হাটবাজার প্রতি মাসে ৭৫ লাখ টাকা যায় কোথায়

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ
  • আপডেট শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৩১ Time View
  • সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

 

 

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা-গোলাকান্দাইল এলাকার ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক ও এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়কের দুই পাশে গড়ে তোলা অবৈধ দোকানপাট, গোলাকান্দাইল গোলচক্করসহ বাজার ও দোকানপাট থেকে মাসে ৭৫ লাখ টাকা চাঁদা তুলার অভিযোগ উঠেছে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে। হিসাব মতে প্রতিদিন আড়াই লাখ টাকা ।

ছোট বড় এক হাজার ফুটপাতের দোকান থেকে ২৫০ টাকা করে আড়াই লাখ টাকা চাঁদাবাজি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

মহাসড়কের ফুটপাত উচ্ছেদ অভিযান না করায় সাধারণ মানুষের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে ক্ষোভ।

এলাকাবাসী জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফয়সাল হক এখানে যোগদানের পর একবার মহাসড়ক পরিস্কারে ফুটপাত উচ্ছেদ অভিযান করেন৷ এরপর আর কোন অভিযান না করায় সড়কের দুই-তৃতীয়াংশ দখল করলেও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উচ্ছেদের কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না।

অভিযোগ রয়েছে, অভিযানকালে প্রভাবশালীদের তদবিরে ফুটপাতের কিছু কিছু অংশ উচ্ছেদ করা হয়নি। ফুটপাত ব্যবসায়ীরা জানান এখান থেকে প্রতিদিন প্রায় আড়াই লাখ টাকা চাঁদা আদায় করা হয়। ওই হিসাব মতে মাসে চাঁদা হয় প্রায় ৭৫ লাখ টাকা। আর এ চাঁদার টাকা উঠানো হয় উপজেলা প্রশাসন, ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ি, ভুলতা হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্প ও দলীয় নেতাকর্মীদের নামে। এরপর আবার চোর-পুলিশ খেলানো হয় এসব নিরীহ ফুটপাত ব্যবসায়ীদের সঙ্গে। যারা চাঁদা আদায় করে তারা থাকে ধরাছোঁয়ার বাইরে। শুধু তাই না  হাইওয়ে পুলিশ এএসআই রুবেল  এর মাধ্যমে শত শত গাড়ি মান্থলি চলছে নিষিদ্ধ যানবাহন ।

ভূলতা পুলিশ ফাঁড়ি, ভুলতা হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্প ও দলীয় নেতাকর্মীরা তা অস্বীকার করেছেন।

 

এ ব্যাপারে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পুলিশের নাম ভাঙিয়ে চাঁদা আদায়ের বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ টিআই নাঈম

বলেন আমি নতুন এসেছি আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

আরও সংবাদ
© ২০২৩ | সকল স্বত্ব সকাল নারায়ণগঞ্জ কর্তৃক সংরক্ষিত
DEVELOPED BY RIAZUL