বন্দরে’র দাশেরগাঁ ইট ভাটার ব্যবসায়ী মামুনকে কুপিয়েছে আলাউদ্দিন গংদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানায় এক ব্যবসায়ী কে কুপিয়ে জখম করে কিশোর গ্যাং এর সদস্যরা। বন্দর দাসের গাও এলাকার ইট ভাটার ব্যবসায়ী মামুন(৩০) নামের এক যুবক কে দেশীয় অস্র দিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং এর সদস্যরা বলে জানিয়েছেন আহতের পারিবার । গত বুধবার সন্ধ্যা ৬.৩০ মিঃ বন্দর চৌরা পাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।৩ সেপ্টেম্বর রোজ শুক্রবার সকাল ১০ ঘটিকায় বন্দর থানা  দাশেরগাঁ স্টান্ডে কিশোর গ্যাংদের গ্রেফতারের দাবিতে  মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।
বিস্তারিত বিবরন থেকে জানা যায়- বন্দর চৌরাপাড়া থেকে মামুন তার নিজের ব্যবসার কাজ সেরে বাড়ির উদ্দেশ্য রওনা দেয় মটর সাইকেল যোগে, সেই সময় পূর্ব পরিকল্পিত হত্যার উদ্দেশ্য নিয়ে কিশোর গ্যাং মামুনকে প্রথম আক্রমণ করে চৌরা পাড়ায়, পরে ওখান থেকে বেচে গেলেও চৌরা পাড়া কবি নজরুল সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের সামনে কিশোর গ্যাং এর দ্বিতীয় গ্রুপ মামুন কে মোটরসাইকেল থামিয়ে পিছন থেকে দেশীয় অস্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্য এলোপাথারি আঘাত করলে মামুন মাটিতে পড়ে যায় ঠিক তখনই কিশোর গ্যাং এর (১) আলাউদ্দিন পিতাঃ মৃত সজল সাং দেউলী, (২) সোহাগ পিতাঃ গোলাপ দেউলী, (৩) ফয়সাল পিতাঃ জসিম সাং দেউলী, (৪) ফরহাদ পিতাঃ মুসলেমউদ্দীন সাং দেউলী, (৫) বাবু পিতা- নাম জানা যায়নি মা চম্পা বেগম, (৬) তাইজুল পিতাঃ মৃত আয়নাল সরদার সর্ব সাং দেউলী সহ আরো ৫/৬ জন, মোট ১২ জন কিশোর গ্যাং এর সন্ত্রাসী দল মামুনকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করেছে। পরে পরিবারের সদস্যরা খবর পেয়ে মামুন কে জরুরি ভাবে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য বিভিন্ন হাসপাতালে যোগাযোগ করে, মামুনের অবস্থা বেগতিক দেখে কোন হাসপাতালেই ভর্তী করা যায়নি পরে ঢাকার এক প্রাইভেট “এপোলো হাসপাতাল” এর আই সি ইউ তে ভর্তি করিয়ে চিকিৎসা সেবা’য় রেখেছেন বলে জানিয়েছেন মামুনের পরিবার।
এই ঘটনায় মামুনের ভাই বাদী হয়ে বন্দর থানায় অভিযোগ করেন।মামুনের পরিবার আসমী দের দূর্ত গ্রেফতারের দাবি করে মানববন্ধন করে। মামুনের পরিবারের থেকে মামুনের পিতা বক্তব্য বলেন মামলা হবার পরও কোন আসমি গ্রেফতার করা হয়নি এখনো।তাই মামুনের পরিবারের প্রশাসনের কাছে জোড় দাবি জানিয়েছেন আপনারা কিশোর গ্যাংদের জন্য ব্যবস্থা নিবেন না হলে আমার ছেলের মতো আরো মা বাবার ছেলে বড় কোন হত্যার মতো ঘটনা ঘটতে পারে।
কিশোর গ্যাং আলউদ্দিন গংদের গ্রফতার করে আইনের আওতায় এনে সাজা প্রধান করা হোক।মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বন্দর থানা আওয়ামীলীগ নেতা
শাহজাহানমোল্লা,নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ২৫ নং ওয়ার্ড  আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আল-আমীন মোল্লা,মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী দেওয়া আরিফুল আলম অপু,মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১ ওয়ার্ড মেম্বার মান্নান,মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মুস্তফা,জাপা নেতা ইরন,আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন,এলীন,যুবলীগ নেতা সোহেল,রুবেল,পলিন,এলাকার সর্বস্তরের মানুষ।
পরে মুমুনের পরিবার প্রশাসনের কাছে আসামিদের দূর্ত গ্রেফতারের দাবি করেন।