কক্সবাজারে রিকশা চালকের উপর নির্যাতনকারী ব্যক্তিকে আটক করল পুলিশ

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক):

কক্সবাজার শহরে রিকশা চালিয়ে পরিবারের ভরণপোষণ চালান আব্দুস শুক্কুর। অন্যান্য দিনের মতোই গত ৮ আগষ্ট তারিখেও বের হয়েছিলেন জীবিকার সন্ধানে। বেলা অনুমান সাড়ে ১১ টায় শহরের বাজারঘাটা নামক স্থানে যাত্রী সন্ধানে রিকশা নিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। এ সময় শুকুর আলী নামক এক যাত্রী এসে তাঁর কাছে জানতে চায় “এই রিকশা, চিরঙ্গার বাজার যাবি?” উত্তরে তিনি জানান “যাব স্যার”। ভাড়া কত জানতে চাইলে তিনি জানান ২০০ টাকা। উক্ত ভাড়া শুনে যাত্রী শুকুর আলী ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। ভাড়া বেশি চাওয়া হয়েছে বলে সে রিকশা চালক আব্দুস শুক্কুরের সাথে দুর্ব্যবহার শুরু করে। এক পর্যায়ে তাঁর ওপর চড়াও হয়ে কিল ঘুষি মারতে থাকে। উল্লেখ্য, উক্ত বাজারটি ওই স্থান থেকে অনেক দূরে এবং সেখানে যাবার রাস্তাটিও খুব ভাঙ্গাচুরা।
এক পর্যায়ে যাত্রী শুকুর আলী আরো বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে কর্দমাক্ত রাস্তার উপর দিয়ে রিকশা চালক আব্দুস শুক্কুরকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যেতে থাকে। এ অমানবিক দৃশ্য দেখে আশপাশের কয়েকজন পথচারি এগিয়ে এসে শুকুর আলীর হাত হতে তাঁকে কোনমতে রক্ষা করে। এ সম্পূর্ণ ঘটনাটি ঘটনাস্থলে উপস্থিত অপর এক সচেতন নাগরিক তাঁর মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। পরবর্তিতে তিনি সেটিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেন এবং নিরিহ রিকশা চালকের উপর চালানো এ বর্বরোচিত নির্যাতনের বিচার চেয়ে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটি স্বল্প সময়ের মধ্যে কক্সবাজার জেলা পুলিশের নজরে আসে। এরপর, কক্সবাজার সদর মডেল থানা, কক্সবাজার শহর ফাঁড়ি এবং জেলা গোয়েন্দা শাখা অভিযুক্ত শুকুর আলীকে আটক এবং ভুক্তভোগী রিকশা চালক আব্দুস শুক্কুরকে উদ্ধারের জন্য কাজে নেমে পড়ে। তাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এক ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে ঘটনায় অভিযুক্ত শুকুর আলী কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। অপরদিকে ভিকটিম রিকশা চালককেও খুঁজে বের করা হয়। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।