১৫ই আগষ্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের উপর গ্রেনেড হামলা দিবস

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

১৫ই আগষ্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও ২১শে আগষ্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের উপর গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন ও মুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের যৌথ উদ্যোগে আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।      


শুক্রবার (২১শে আগষ্ট) বিকেলে নগর খানপুরস্থ বরফকল মাঠ সংলগ্ন জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের কালচারাল ট্রেনিং সেন্টারে আয়োজিত আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও নেওয়াজ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা ও মহানগর শ্রমিকলীগের উপদেষ্টা কাজিমউদ্দিন প্রধান।


তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট স্বপরিবারে হত্যার পরে ঘাতকচক্র ভেবেছিল বাংলাদেশে আর কেউ বঙ্গবন্ধুর নাম আওয়ামীলীগের নাম নিতে পারবেনা। কিন্তু তারা জানতো না মুজিব মানেই বাংলাদেশ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কণ্যা শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে বাংলাদেশে এসে আওয়ামীলীগের হাল ধরেছিলেন। তিনি জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে কালো আইন বাতিল করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার বিচার শুরু করেছিলেন। ২০০৪ সালে ২১ আগষ্ট জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনাকে গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে হত্যাচেষ্টা করেছিল ঐ ঘাতকরাই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ১৯ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল কিন্তু আল্লাহর রহমতে তিনি প্রাণে বেঁচে গেছেন। আমরা চাই এই গ্রেনেড হামলা মামলার রায় দ্রুত কার্যকর করা হোক। যাতে বাংলার মাটিতে আর কেউ খুন খারাপি করতে না পারে। 


এ ছাড়াও তিনি বলেন, বিএনপি জামায়াত জোট খুন খারাপি পছন্দ করে। তারা বারবার খুন হত্যার মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে। তারা এজন্য চেষ্টা করেছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কণ্যা শেখ হাসিনা গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে হত্যা করতে। যাতে বিএনপি জামায়াতের জোটের ক্ষমতায় থাকা দীর্ঘস্থায়ী হয়। কিন্তু আল্লাহর রহমতে শেখ হাসিনা বেঁচে রয়েছে এবং দীর্ঘ এক যুগ ধরে ক্ষমতায় আছেন। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় ধাবিত হচ্ছে। বর্তমান সরকার শ্রমিক বান্ধব সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার শ্রমিকদের মজুরী কয়েকদফা বৃদ্ধি করেছেন। আমাদের নারায়ণগঞ্জের সকল সেক্টরের শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।  


মুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি জুয়েল প্রধানের সভাপতিত্বে এবং বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটি ও মুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সবুজ শিকদারের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় শ্রমিকলীগ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মাইনউদ্দিন আহম্মেদ বাবুল, মহানগর শ্রমিকলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলমগীর কবির বকুল ও জেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি মোঃ শহিদুল্লাহ প্রমুখ।