হরিহরপাড়া স্কুলে জোর নয়,সেচ্ছায় যারা বেতন দিবে তাদেরটা নেওয়া হবে:লিটন

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় অবস্থিত হরিহরপাড়া প্রাথমিক উচ্চ বিদ্যালয়।এখানে ২০০০ এর থেকেও বেশি শির্ক্ষাথীদের আনাগোনা।

কিছুদিন আগে সরকার এই মহামারী করোনা ভাইরাসের জন্য সকল স্কুল কলেজ বন্ধ করার ঘোষনা দিয়েছিলো।তবে এই হরিহরপাড়া স্কুল কতৃপক্ষ ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে বেতন নিবে এমন একটি তথ্য পাওয়া গিয়েছে সুত্রে।

শনিবার রাতে বিষয়টি এমন নয় এর ব্যাখা দিয়ে স্কুল কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান লিটন সকাল নারায়ণগঞ্জকে জানানঃ আমাদের স্কুলটি বেসরকারি।আমাদের স্কুলে ৫৭-৫৮ জন শিক্ষক-শিক্ষীকা রয়েছে। তাদেরকে তু বেতন দিতে হবে।দেশের যেই পরিস্থিতি বেতন কই থেকে দিমু।সরকারের থেকে শিক্ষক-শিক্ষীকারা একটা বেতন পায়।

আমাদের স্কুল থেকে একটা বেতন দেওয়া হয়।এখন এই করোনা ভাইরাসে তারা মানবতার জীবনযাপন করছে।সরকারের টাকা দিয়া তু আর নারায়ণগঞ্জ শহরে বাসা ভাড়া টাফ হয়ে যায়। লিটন আরও জানান,৬ মাস ধরে স্কুল বন্ধ।আমরা কিছুদিন আগে একটা মিটিং করেছি।যেখানে শিক্ষকদের সাথে আলাপ করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২ মাসের বেতন চাইতে বলেছি।আপনারা দেখেন নিতে পারেন কিনা।

যারা দিতে পারবে দিবে,আর যারা পারবে না তাদের জোর নেই।ইচ্ছাকৃত ভাবে যারা দিবে তাদেরটা নিবেন।আর এখানে স্কুলে ২০% শিক্ষার্থী এমনি আসে না। সরকার সরকারি শিক্ষকদের বেতনের ব্যপারে অবশ্যই কিছু একটা বলবে।এই বেতনটা নেওয়া মানে সামনে ঈদ আসতাছে আমরা শিক্ষকদের কিছু দিতে পারবো।