সিদ্ধিরগঞ্জ নিমাইকাশারী এলাকায় সাকিবের বাড়ীতে দূর্ধর্ষ ডাকাতীর ঘটনায় থানায় অভিযোগ

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন নিমাইকাশারী বাজার সংলগ্ন মরহুম ফরহাদ হোসেন বাড়ীর দ্বিতীয় তলায় গণমাধ্যমকর্মী সাকিবের বাসায় 

সোমবার ১৯ অক্টোবর ভোরে দূর্ধর্ষ ডাকাতীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাকিব একটি দৈনিক পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার।  সিদ্দিরগঞ্জ থানা অভিযোগ নং ৫৬৯২/১৯/১০।সুত্রে জানা যায় চলতি মাসের ১ তারিখে সাকিব তার নিজ বাড়ী সোনাগাঁয়ে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে সহধর্মী শিফা ও সন্তানদের নিয়ে বেড়াতে যায়।

বাসায়  গচ্ছিত ১০ থেকে ১২ ভরি স্বর্নের অলংকার ও জমি রেজিষ্ট্রি করার জন্য ১৬ লক্ষ টাকা আলমারীতে রাখা ছিল যা সোমবার ভোরে একদল ডাকাত দল তার কলপসিপল গেট ও ঘরে ঢুকার প্রধান ফটকের দরজার তালা ভেঙ্গে এই ডাকাতী চালাই। বিষয়টি ভোরে বাসার ভাড়া টিয়া  সাকিবের ঘরের দরজা ও কলপসিপল গেট খুলা দেখে সাকিবকে ফোনে অবগত করলে সাকিব তার স্ত্রীকে নিয়ে ছুটে আসে নিমাইকাশারীর নিজ বাসায়।

ষড়জমিন পর্যবেক্ষন করে সাকিব সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় সন্দেহজনক ভাবে নিজ বাদি হয়ে মোহাম্মদ আলী গং,রিয়াদ,আকাশ,নাসির ও বিশুর বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বেলা ১২টায় সাকিবের অভিযোগের ভিত্তিতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ এস আই গৌতম সাহা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ডাকাতীর ঘটনার সত্যতা শিকার করে জানান বিষয়টি তদন্ত চলছে তবে যাদেরকে সন্দেহ করা হয়েছে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এর রহস্য বেড়িয়ে আসবে।

সাকিবের স্ত্রী শিফা জানান আমি তিল তিল করে টাকা জমিয়ে সন্তানদের ভবিষ্যতের জন্য স্বর্ন গুলো ক্রয় করেছিলাম সেই সাথে একটি জমি রেজিষ্টি করার জন্য টাকা গুলো ব্যাংকে না রেখে তড়িঘরি করে শ^শুরবাড়ীতে গিয়েছিলাম একটি বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য এবং দীর্ঘদিন  সেখানে না যাওয়ার কারনে শশুর শাশুড়ীর অনুরোধে বেশ কিছু দিন সেখানে অবস্থান করেছি কিন্তু আমার ভাগ্যে এই পরিনতি লিখা থাকবে তা কখনও বুঝতে পারেনি।

তিনি আরো জানান পূর্ব শুক্রতার জের ধরে মোহাম্মাদ আলী গং আমাকে নিঃস করতে এই ঘটনাটি ঘটিয়েছে। আমার বাসার নিরাপর্তা থাকা সত্বেও ভারাটিয়াদের ম্যানেজ করেই এই ডাকাতীর কার্যক্রমটি সম্পাদন করতে সক্ষম হয়েছে সংঘবদ্ধদলটি। কথাগুলো বলতে বলতে সাকিবের স্ত্রী কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে অজ্ঞান হয়ে পরলে তাকে সিদ্ধিরগঞ্জ সুগন্ধা মেডিকেল হাসাপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয় সেখানে সাময়িক চিকিৎসা শেষে বাসায় নিয়ে আসা হয়।

সাকিব জানান শুধুমাত্র পূর্ব শক্রতার জের ধরে দীর্ঘদিন অতপেতে বসে থাকা এই চক্রটি পূর্বপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার লক্ষে এই জঘন্য কাজটি ওরা করেছে। আমি প্রশাসনের নিকট এর সুষ্ট তদন্ত ও আসামীদের বিচার সহ আমার গচ্ছিত স্বর্ন অলংকার ও টাকা উদ্ধারের দাবি করছি।