যানজট সৃষ্টির অন্যতম প্রধান কারণ মৌমিতা ট্রান্সপোর্ট -ডিসি

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

নারায়ণগঞ্জ শহরে যানজট সৃষ্টির অন্যতম প্রধান কারণ হিসেবে পরিণত হয়েছে মৌমিতা ট্রান্সপোর্টের বাস। এই বাসগুলো যত্রতত্র একসাথে ৪ থেকে ৫ টি বাস দাঁড় করে যাত্রী উঠানামা করে।

কোনোভাবেই যেন তাদের দমানো যাচ্ছে না। আর এই বিষয়টি নিয়ে স্বয়ং নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দিন চরম বিরক্তি প্রকাশ করেছেন। সেই সাথে মৌমিতা টান্সপোর্ট সহ অন্যান্য পরিবহনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার কথাও বলেছেন।

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এই বিরক্তি প্রকাশ ও অভিযানের নির্দেশনা দেন। ‘মুজিব বর্ষের শপথ সড়ক করবো নিরাপদ’ প্রতিপাদ্যকে সামানে রেখে ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এই সভার আয়োজন করা হয়।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, যখনই মেট্রোহল দিয়ে আসি তখনই দেখি মৌমিতার ৩টি বাস একসাথে দাঁড় করিয়ে আমার গাড়ি আটকে দিয়েছে। আমার সঙ্গে থাকা পুলিশ যখন নামে তখন তাড়াহুড়ো করে রাস্তা ছাড়ে। অনেক সময় মনে হয় নিজেই নেমে মারধর করি।

পরে ভাবি জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হয়ে নিজে কিভাবে মারি? আমি যদি মারি তাহলে বিচার কে করবে? এটা ভেবে থেমে যাই। মৌমিতা এখানেই দেখি একশো। কয়হাজার অনুমতি দেয়া হয়েছে জানি না। ১৩০ টি অনুমতি দেয়া হলে এখানেই থাকে ১৩০ টি।তিনি আরও বলেন, এসপি সাহেব যেভাবে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামীর নাম তালিকা করে ঝুলিয়েছিলেন তেমনিভাবে অবৈধ বাসগুলোর নাম্বার বিভিন্ন ঝুলিয়ে দেয়ার দরকার।

মৌমিতার এই বাসগুলো অবৈধ তালিকা করা হতো তাহলে জনগণই এড়িয়ে চলতো। মৌমিতা যার গাড়িই হোক না কেন, আমার বাবার গাড়ি হোক কেন, ছাড় দেয়ার সুযোগ নাই। যদি পরিচয় দেয় তাহলে তার বিরুদ্ধে আগে শাস্তির ব্যবস্থা করা দরকার।

জেলা প্রশাসক বলেন, শনিবার থেকেই অভিযান শুরু হবে। কার গাড়ির অনুমতি আছে আর কার গাড়ির অনুমতি নাই এটাকে বড় বিলবোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেয়া হোক। তাহলে বহুজনের চরিত্র বেরিয়ে আসবে। সবকিছু স্পষ্ট হয়ে যাবে।