বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে একটি প্রতিনিধি দল

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহানের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল নারায়ণগঞ্জের তল্লা এলাকায় বায়তুল সালাত আমে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 


সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে তল্লা রেললাইন সংলগ্ন বাইতুস সালাত জামে মসজিদ ও এর আশপাশের এলাকা পরিদর্শন করেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে গিয়ে সান্ত্বনা দেন ও নগদ অর্থ সহায়তা করেন বিএনপি নেতারা।

পরিদর্শন শেষে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণের দায় সরকারের। দুর্ঘটনায় যেসব পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছে তাদের প্রত্যেক পরিবারকে সরকার যাতে ৫০ লাখ টাকা অনুদানের ব্যবস্থা করে সেই দাবি জানাই।


তিনি বলেন, আজ এই দুর্ঘটনা কেন হলো সেটি বের করতে হবে। অনেকে অভিভাবকহারা হয়েছেন। এর দায় সরকারকে বহন করতে হবে। যেখানে শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুর্ঘটনা ঘটলো সেখানে আজ সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) গ্যাসের লাইন সরানোর জন্য এতো হুলস্থুল । বিদ্যুতের দুটি কানেকশন থাকার কথা শোনা যাচ্ছে । আমরা মনে করি, সরকারি প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে এখানে এই বিপর্যয় ঘটেছে । এই উদাসীনতার সাথে যদি কেউ জড়িত থাকে তবে আমরা মনে করি, উচ্চ পর্যায়ের বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞদের এখানে এনে তদন্ত করে যাদের গাফলতির কারণে এখানে এতোগুলো প্রাণ গেল তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আনা হোক, জবাবদিহিতার আওতায় আনা হোক।


বিএনপির প্রতিনিধি দল বিস্ফোরণে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন । এবং নিহত ও হতাহতের বাড়ি বাড়ি যান এবং সান্তনা দেন । বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষে থেকে হতাহতের পরিবারের মাঝে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন ।


বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানের নেতৃত্বে এ সময়ে আরোও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য এড. তৈমুর আলম খন্দকার, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, যুগ্ম মহাসচিব ও সাংসদ হারুনুর রশিদ হারুন, সাংগঠনিক সম্পাদক, ফজলুল হক মিলন, সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আব্দুস সালাম, সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, সহ- আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, সদস্য আজহারুল ইসলাম মান্নান, এড. আবুল কালাম, মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপু । এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শিপন আহমেদ, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম খান সেন্টু, জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন, সাবেক সহ-সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি, সাবেক সহ-সভাপতি মাহমুদুর রহমান সুমন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাশুকুল ইসলাম রাজিব, সাবেক সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শিকদার, মহানগর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম সজল, সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত হাসেম শকু, জেলা যুবদলের সভাপতি শহিদুল ইসলাম টিটু, সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক খোকন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক সহিদুর রহমান স্বপন, যুগ্ম সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, মহানগরের সভাপতি মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, সহ- সভাপতি আক্তার হোসেন সবুজ, সোনারগাঁও উপজেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আশরাফ ভূঁইয়া, যুগ্ম আহ্বায়ক আশরাফ মোল্লা, জেলা যুবদলের সহ- সম্পাদক সেলিম হোসেন দিপু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি, জেলা ছাত্রদল নেতা শাহাজাদা আলম রতন, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি শাহেদ আহমেদ, সহ-সভাপতি হামিদুর রহমান সুমনসহ জেলা ও মহানগর বিএনপির অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ।