তাও শিক্ষা হয় না আমাদের- শামীম ওসমান

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

সামনে যে মহামন্দা আসছে সেই মহামন্দা যে কত কঠোর আঘাত হানবে তা এখনই বুঝতে পারছে পোশাক কারখানার মালিকরা। কত কোটি টাকার কাজ বন্ধ হয়েছে সেটা এখনই তারা বুঝতে পারছে। গার্মেন্টস কিন্তু অর্থনীতিকে বিল্ডআপ করে না, কর্মসংস্থান বাড়ায়।

দেশের অর্থনীতিতে কৃষিখাত ৪০ শতাংশ অবদান রাখে। কিন্তু এবার বন্যা এসে সেটাও নষ্ট করে দিয়েছে। আমার মনে হয় না গত কয়েকশ বছরে পৃথিবীর অন্যান্য সব রাষ্ট্রের অর্থনীতির অবস্থা এত খারাপ হয়েছে। তাও শিক্ষা হয় না আমাদের। শিক্ষা যদি হতো তাহলে কি আর জেকেজি ও সাহেদ হতো?

বুধবার (১৫ জুলাই) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, কয়েক বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থী মারা যাওয়ার ঘটনায় সারা বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ মাঠে নেমে গিয়েছিল। আমার তখন তাদের জন্য প্রচন্ড রেসপেক্ট জন্মেছিল তাদের জন্য। কেননা আমি ভাবতাম এই প্রজন্মটা মনে হয় গেছে ফেসবুকিংয়ে।

কিন্তু আমি এখন আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য গর্ববোধ করি। ওরাই এখন আওয়াজ তুলবে, ওরাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজ করবে। করোনার কারণে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যে পড়তে যাচ্ছে আশঙ্কা করছেন সাংসদ শামীম ওসমান। তিনি বরেণ্য অর্থনীতিবিদ, রাজনীতিক, আলেম, শিল্পপতি, গণমাধ্যমকর্মীদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করার প্রস্তাব করেছেন। কমিটির প্রধান থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি এই বিষয়টি সংসদেও তুলবেন বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, জাতির জনকের কন্যা যখন বাংলাদেশের জিডিপি আট শতাংশেরও বেশি অবস্থানে নিয়ে আসলো তখন করোনা নামে ঝড় এলো। আগামী তিন মাস পর যেই ঝড় আসবে সেইটা হবে সবচেয়ে বড় ঝড়। বাংলাদেশের ১৮ কোটি লোকের মধ্যে এক কোটি লোক যাকাত দেয়।

যাদের মধ্যে কেউ কেউ আছেন ৫ কোটি, ১০ কোটিও যাকাত দেয়। এখন এক কোটি লোক যদি ৫ লাখ টাকা করেও যাকাত দেয় তাহলে হিসেব দাড়ায় ৫ লাখ কোটি টাকা দাড়ায় যা আমাদের বাজেটের সমান। সুতরাং যারা আওয়ামী লীগকে দেখতেও পারি না তারাও বিশ্বাস করেন জাতির জনকের কন্যা একজন দেশ প্রেমিক এবং সাচ্চা ধার্মিক মানুষ। তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন।

এই সংসদে বাজেটের উপরে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ ছিল না। কিন্তু আগামী সংসদে আমার এই প্রস্তাবণাটা আমি রাখবো। মালয়েশিয়ায় এই ব্যবস্থা রয়েছে। পাকিস্তানের মত ব্যর্থ রাষ্ট্রে এই টাকা দিয়ে দুর্যোগ মোকাবেলা করা হয়।