অপহৃত ৯ বছরের শিশুকে উদ্ধার করেছে র‍্যাব-১১

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

নারায়ণগঞ্জের বন্দর থেকে অপহৃত ৯ বছরের শিশুকে ৩ দিন পর যাত্রাবাড়ী থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১ । এ ঘটনার সাথে জড়িত মোঃ ওয়াসিম (৩২) নামক এক অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১।


আজ শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে যাত্রাবাড়ী থানাধীন আইডিয়াল স্কুলের গলি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীর ভাড়া বাসায় অভিযান চালিয়ে হাত-পা বাধা অবস্থায় অপহৃত শিশুকন্যাকে উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার চতরংখলা এলাকার মোঃ ফজলুল হকের ছেলে।


র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( সিপিএসসি আদমজীনগর) মোঃ জসিম উদ্দীন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।


তিনি বলেন, গত ২ সেপ্টেম্বর রোজিনা বেগম (২৮) নামক এক নারী র‌্যাব-১১, নারায়ণগঞ্জ বরাবর একটি অভিযোগ করেন যে, গত ০১ সেপ্টেম্বর এক ব্যক্তি বন্দরের মদনপুর এলাকায় তাদের ভাড়া বাড়ির সামনে থেকে তার ৯ বছরের শিশুকন্যাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। মোবাইল ফোনে অপহরণকারী তার মেয়েকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে তার কাছে মোটা অঙ্কের মুক্তিপণ দাবি করে। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১১ কর্তৃক গোয়েন্দা নজরদারী ও গোপন অনুসন্ধান শুরু করে। 


অপহৃত শিশু কন্যার মা রোজিনা বেগম একজন কারখানা শ্রমিক। রোজিনা বেগম তার কর্মস্থলে আসা যাওয়ার পথে ২ মাস পূর্বে অপহরণকারী মোঃ ওয়াসিমের সাথে পরিচয় ঘটে। পরিচয়ের সূত্র ধরে অপহরণকারী কৌশলে রোজিনা বেগমের ভাড়া বাসা চিনে রাখে। পরবর্তীতে অপহৃত শিশুর মা রোজিনা বেগম নাইট ডিউটিতে থাকা অবস্থায় ফাঁকা বাসার সুযোগ কাজে লাগিয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর সকাল ৭ ঘটিকায় আসামী শিশুকন্যাকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং ঢাকাস্থ যাত্রাবাড়ীর একটি ভাড়া বাসায় জিম্মি করে রাখে। সে শিশুকন্যাটিকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করে ছবি তুলে ভিকটিম শিশু কন্যার মায়ের মোবাইলে প্রেরণ করে ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। 
এর প্রেক্ষিতে অপহৃত শিশুকন্যার মা র‌্যাব-১১ বরাবর একটি অভিযোগ দাখিল করে। ঘটনার সত্যতা পেয়ে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় আজ শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে যাত্রাবাড়ী হতে অপহরণকারী মোঃ ওয়াসিম’কে গ্রেফতার করা হয়।


 উপস্থিত সাক্ষীদের সামনে আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে সে শিশু কন্যাকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা এবং আটকে রেখে ৩দিন ধরে যৌন নির্যাতন করার কথা স্বীকার করে। 


গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।