হোন্ডারোহীকে হত্যার পর হোন্ডা , মোবাইল সেট টাকা লুটে নিল ডাকাত দল

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

বন্দরে হোন্ডারোহীকে হত্যা করে হোন্ডা , মোবাইল সেট টাকা লুটে নিয়ে গেছে ডাকাত দল। 


বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) ভোর রাতের দিকে নারায়ণগঞ্জের বন্দরের তালতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত হোন্ডারোহীর নাম শাহীন মাতবর(৪০)। তিনি পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানির বালিপাড়া গ্রামের সুলতান মাতবরের ছেলে। 


শাহীন মাতবর দীর্ঘদিন ধরে মদনগঞ্জের বসুন্ধরা সিমেন্ট ফ্যাক্টরীতে বাবুর্চি ( সেফ) হিসেবে কাজ করছেন বলে পুলিশ জানায়। 


বন্দর থানার ওসি ফখরুদ্দীন ভুইয়া জানান, রাত ২/৩ টার দিকে শাহীন মাতবর মদনপুরের ভাড়া করা বাসা থেকে মোটর সাইকেলে করে কর্মস্থল মদনগঞ্জের বসুন্ধরা সিমেন্ট ফ্যাক্টরীতে যাচ্ছিলেন।  বন্দরের ধামগড় ইউনিয়নের মদনগঞ্জ-মদনপুর সড়কের তালতলা নামক স্থানে একদল ডাকাত সড়কের দুই পাশের গাছের সঙ্গে রশি বেধে ব্যারিকেড সৃষ্টি করে। হোন্ডারোহী শাহীন অন্ধকারে ব্যারিকেড দেয়া রশি দেখতে পাননি।

দ্রæত গতিতে  হোন্ডা চালিয়ে যাওয়ার সময় তিনি রশির সঙ্গে আটকে পড়ে যান।


তিনি আরও  জানান, তালতলা  স্থানটি অত্যন্ত খারাপ ।  প্রতি রাতে পুলিশের দুটি টহল দল এখানে ডিউটি করে। কিন্তু তারপরও ডাকাতি রোধ করা যাচ্ছে না। এ সময় ডাকাতরা তার হোন্ডা , মোবাইল সেট ও টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। তাকে পড়ে থাকতে দেখে অদুরে থাকা পুলিশের একটি টহল দল এগিয়ে এলে তিনি তাদেরকে বাঁচানোর অনুরোধ করেন। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে বন্দর উৃপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে মামলা হয়েছে।


এলাকাবাসী জানান, বন্দরের ধামগড় ইউনিয়নের তালতলা স্থানটি সন্ধ্যার পরই ভয়ংকর রূপ ধারণ করে।

সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে সশস্ত্র ডাতাক ও ছিনতাইকারীরা  এখানে ওৎপেঁতে থাকে। সুযোগ বুঝে পথচারীদের হতাহত করে সর্বস্ব লুটে নেয়।