মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় চাষাড়ার কৃতি সন্তান রফিকুল ইসলামকে হত্যার চেষ্টা

সকাল নারায়ণগঞ্জ:

স্টাফ রিপোর্টার (আশিক)

মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় চাষাড়ার কৃতি সন্তান রফিকুল ইসলামকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। 

বুধবার (১০ মার্চ) রাত পৌনে ১১টার দিকে চাষাড়া লিংক রোডে চানমারীর সামনে মোটর বাইকের পিছু নিয়ে প্রাইভেট কার দিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যার চেষ্টা করা হয়।

 এই বিষয়ে ভুক্তভোগী রফিকুল ইসলাম ফতুল্লা মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

ভুক্তভোগী রফিকুল ইসলাম জানান, মোঃ মাহমুদুল হাসান সোহেল (৩৪), শাহরিয়ার হাসান (৩৫), রুপু @রুপক (৩৮), শাওন (৩২), শুভ (৩১) ও আরও কয়েকজন মিলে পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যার চেষ্টা করে। উক্ত আসামীদের সাথে পূর্বে থেকেই বিরোধ ও শত্রুতা চলছিল। এই সূত্রতার জের ধরেই বিবাদীরা বিভিন্নভাবে তাকে ও তার পরিবারকে হুমকি প্রদান করে আসছিল।

বুধবার (১০ মার্চ) রাত পৌনে ১১টার দিকে চানমারীস্থ এ বি সি স্কুলের সামনে বিবাদীরা বেআইনী জনতাবদ্ধে ধারালো ছুরি, চাকু, লোহার রড, কাঠের লাঠি ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তার মটর সাইকেলের গতিরোধ করে অতর্কিত ভাবে আক্রমণ করে।

একপর্যায়ে ১নং বিবাদী সোহেলের হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে খুন করার উদ্যেশ্যে মাথায় আঘাত করলে তিনি বা হাত দিয়ে ফিরানোর সময় তার বা হাতে গুরুতর জখম হয়।

২নং বিবাদী শাহরিয়ার হাসানের হাতে থাকা কাঠের লাঠি দিয়ে তাকে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে দুই পায়ে, পিঠে, কোমরে সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। ৩,৪ ও ৫ নং বিবাদী রুপু, শাওন ও শুভ সহ আরও কয়েকজন মিলে এলোপাথাড়ি কিল, ঘুষি, লাথি মেরে বুকে পিঠে সহ ঘাড়ে জখম করে। মারামারির সময় উক্ত বিবাদীরা তার প্যান্টের পকেট থেকে নগদ ৪হাজার ৩২০ টাকা ও তার গলায় থাকা ১২ আনা ওজনের স্বর্ণের গলার চেইন নিয়ে যায় যার মূল্য ৪৫হাজার টাকা।

এরপর আমার ডাক চিৎকারে লোকজন আসা শুরু করলে উক্ত বিবাদীরা আমাকে হুমকি ধামকি দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন মিলে সোহেল ও শাহরিয়ারকে আটক করে। এরপর থানায় ফোন দিলে ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশ এসে সোহেল ও শাহরিয়ারকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে যায়।

ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রকিবুজ্জামান বলেন, এ বিষয়ে আমি তদন্ত করছি। উক্ত বিবাদীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।