বিএনপির বিজয় র‌্যালিতে পুলিশকে মারধর-১৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা

বিএনপির বিজয় র‌্যালিতে পুলিশকে মারধর-১৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা
বিএনপির বিজয় র‌্যালিতে পুলিশকে মারধর-১৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা (ছবি সকাল নারায়ানগঞ্জ)

সকাল নারায়ণগঞ্জঃ বিজয় দিবসের র‌্যালিতে বাধা দেওয়ার জের ধরে পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরো ৩০০ জনের নামে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া মামলায় উল্লেখিত জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালসহ মোট ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি এডঃ সাখাওয়াত হোসেন খানের অনুসারী নেতাকর্মীরা প্রজন্ম ৭১ নামের একটি সংগঠনের ব্যানার নিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মিছিল বের করে। মিছিলটি দেওভোগ এলাকা থেকে শুরু হয়ে ২নং রেল গেইট এলাকায় পৌছালে সদর থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জয়নাল আবেদীন বাধা দিয়ে ব্যানার কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। বাধা দেয়ার জেরে মিছিলকারী নেতাকর্মীলা তার ওপর চড়াও হয়। শুধু চড়াও নয়, তাকে ঘাড় ধাক্কা দেয়া, কিল-ঘুষি দিয়ে রাস্তায় ফেলে দিয়ে লাঞ্ছিত করেছে বিএনপির কর্মীরা। একইসময়ে অতিরিক্ত পুলিশ আসলে মিছিলকারীদের ওপর লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এছাড়াও মহানগর বিএনপি, ছাত্রদল ও শ্রমিকদলের র‌্যালিতেও পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া এবং লাঠিচার্জের ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে বেলা ১১টার দিকে মিশনপাড়া এলাকা থেকে বিএনপি নেতা মনিরুল ইসলাম সজলের নেতৃত্বে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি বিজয় স্তম্ভের সামনে আসলে বাধা দেয় পুলিশ। নেতাকর্মীরা বাধা উপেক্ষা করে বিজয়স্তম্ভে ফুল দিয়ে পুনরায় মিশনপাড়া ফিরে যাওয়ার সময় পিছন থেকে ধাওয়া দিয়ে মহানগর ছাত্রদলের কর্মী রাকিব হোসেন (৩০), মো. মামুন (২০) ও স্বপন মিয়াকে (২০) আটক করে।

অপরদিকে পুলিশ মারধর ও লাঞ্ছিতের ঘটনায় জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনির, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাশুকুল ইসলাম রাজীব, মহানগর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সহ-সভাপতি এড: সাখাওয়াত হোসেন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু, যুবদলে নেতা মনিরুল ইসলাম সজল, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকদল যুগ্ম সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক ওহিদুল ইসলাম ছক্কু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি, জেলা শ্রমিকদলের সভাপতি মন্টু মেম্বার, বিএনপি নেতা আকরাম প্রধান, মাহমুদুল হাসান লিংকনসহ ৩০০ জনকে অজ্ঞাত করে মামলা দায়ের করা হয়। এ মামলায় গতকাল মঙ্গলবার রাত ১ টায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে গ্রেফতার করে।

এছাড়া পুলিশকে লাঞ্ছিত করার মুহুতে চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।